কচুয়া উপজেলা প্রশাসন ও ১১ নং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সহ যথাযত কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি আকর্ষন!

চাঁদপুর জেলাধীন কচুয়া উপজেলার ১১ নং গোহট (দঃ) ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের খাজুরিয়া লক্ষীপুর গ্রামের প্রধানীয়া বাড়ির পশ্চিম পাশের জোড় পোল থেকে হাফেজ সাহেব বাড়ী পর্যন্ত প্রায় অর্ধ কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা।এই রাস্তাই ঐ এলাকার প্রায় ২০০০ লোকের যোগাযোগের একমাত্র পথ।এই পথ দিয়েই ঐ এলাকার সুফি সাধক হাফেজ শাহ হুজুর (রঃ) এর মাজার জেয়ারতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রত্যহ অসংখ্য মানুষ আসা যাওয়া করছে।রাস্তাটির দূরবস্থার কারনে বর্ষা মৌসুমে এলাকার লোকজন, স্কুল পড়ুয়া ছেলে মেয়ে নিদারুণ সমস্যার সম্মুখীন হয়ে থাকে।রাস্তার মধ্যে গভীর গর্ত,পেক কাঁদায় একাকার হয়ে যায়।রাস্তা এতো খারাপ হয় যে বর্ষা মৌসুমে এই পথ দিয়ে রিক্সা থেকে শুরু করে কোন ধরনের যানবাহন চলাচল করার সুযোগ থাকেনা।

Image may contain: plant, tree, outdoor and nature

কোন গাড়ী চলাচল না করার কারনে এ এলাকার লোকজন বর্তমানে তাদের নিত্যপ্রয়োজনীয় কোন ভারী মালামাল এ পথ দিয়ে বহন করতে না পেরে বিরাট সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে।বিভিন্ন সময় বিভিন্ন লোকজন,রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ এই রাস্তা পাকাকরনের আশ্বাস দিলেও কেন জানি কোন অজ্ঞাত কারনে তা আর হয়ে উঠেনি।দেশ যখন উন্নয়নের জেয়ারে ভাসছে তখন এলাকার ভুক্তভোগী মানুষ রাস্তার জন্য এমন দূর্বিষহ কষ্ট পাচ্ছে যা কোনভাবেই মেনে নেওয়া যায়না।এ মূহুর্তে এলাকাবাসীর প্রানের দাবী যেকোন মূল্যে তাদের এই রাস্তা পাকাকরনের তড়িৎ ব্যবস্থা নেওয়া হোক।তাই,অনতিবিলম্বে এ রাস্তাটুকু পাকাকরনের উদ্দেশ্যে জোর ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য কচুয়ার উন্নয়নের রুপকার ডঃ মহিউদ্দিন খান আলমগীর এম পি,কচুয়া উপজেলা প্রশাসন,১১ নং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব, শাহারিয়া শাহিন সহ যথাযত কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি আকর্ষন করছি।