খোশ আমদেদ মাহে রমজানে নারীর ইবাদত !

 খোশ আমদেদ মাহে রমজানে নারীর ইবাদত !

মুশতারী তাসনিম মুন্নী: রমজান। আত্মশুদ্ধি ও সংযমের অপর নাম। রহমত, বরকত, মাগফিরাতের মতো পুণ্য নিয়ে আসে আমাদের জীবনে। পাপ মোচন, নিজেকে শুদ্ধিকরণের অফুরন্ত সুযোগ এই রমজান।

রোজা একটি মনোদৈহিক ইবাদত। এটি যেমন পুরুষের জন্য ফরজ বিধান তেমনি নারীদের জন্য সমভাবে প্রযোজ্য। তবে মর্যাদার ক্ষেত্রে নারীরাই এগিয়ে।

হাদীসে এসেছে, “যদি কোনো নারী ঠিকমতো পাচঁওয়াক্ত নামাজ পড়ে, রমজান মাসে রোজা রাখে, পর্দার সাথে নিজ ইজ্জত হেফাজতে রাখে, স্বামীর আনুগত্য থাকে, তাহলে সেই নারীর জন্য আল্লাহ তায়ালা জান্নাতের আটটি দরজাই খোলা রাখবেন, ওই নারী যে দরজা দিয়ে খুশি, সেই দরজা দিয়েই জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবেন “। (সুনানে তিরমিজি)

কুরআন তেলাওয়াত।

কুরআন অবতীর্ণের মাস রমজান। কুরআন তেলাওয়াত নফল ইবাদতের মধ্যে স‌র্বোত্তম। তাই যতবার খুশি ততবারই আপনি কুরআন খতম দিতে পারেন। এজন্য সুযোগ করে আপনাকে সময় বের করে নিতে হবে। পুরো রমজানই একটু রুটিন মাফিক চলুন। কুরআন তেলাওয়াতের দ্বারা আপনার কলব পরিস্কার হবে।

নামাজ ঠিক রাখা।

রোজা রাখার দরুন ক্লান্তি যেনো আপনার নামাজে বাধা না হয়। অলসতা না করে আওয়াল ওয়াক্তে নামাজ আদায় করুন। নফল নামাজ সাথে রাখুন। আপনার আখিরাতের জন্য কাজে আসবে।

হারাম গুনাহ হতে দুরে থাকুন।

রমজানের পবিত্রতা রক্ষার্থে আপনি হারাম বেছে চলুন। হারাম কাজ হতে নিজেকে বিরত রাখুন। একসময় হালাল আপনার অভ্যেস হয়ে যাবে।

জবান পবিত্র রাখুন ।

পরনিন্দা, গীবত কিংবা অশ্লীল বাক্য হতে নিজেকে দুরে রাখুন। গোটা দিন না খেয়ে, আল্লাহর জন্য রোজা রাখছেন, আবার পাশের প্রতিবেশী কিংবা কাছের কারও পরনিন্দা বা গীবত করছেন, তাহলে আর রোজার পবিত্রতা রাখা হলো কই? সুতরাং নিজেকে সংযত রাখুন এবং কেউ বলতে এলে তাকেও সাবলীল ভাবে বুঝিয়ে না বলুন।

চোখের হেফাজত করুন।

আধূনিকতার ছোঁয়ায় মুঠোফোন এখন স্মার্টফোন। পুরো পৃথিবী আপনার হাতের মুঠোয়। এখানে নাটক, সিনেমা বা নাচগান ছাড়াও চোখের যেনা হবার মতো অসংখ্য পথ রয়েছে। আপনি নিজেকে এসব হতে দুরে রাখুন। তেলাওয়াত শুনুন, ইসলামী সংগীত শুনুন ভালো লাগবে।

যিকির ও দোয়ায় লিপ্ত থাকুন।

যিকির আপনার জবানের হেফাজতের জন্য সর্বোত্তম পদ্ধতি। হাটতে বসতে কাজে কর্মে আপনি যিকির করুন মনে মনে। ছোট ছোট দোয়ায় নিয়োজিত রাখুন নিজেকে। জবানের হেফাজত হবে। আত্মা সুস্থ হবে।

দান সদকা বাড়িয়ে দিন।

স্বামী ভাই কিংবা বাবা এদের অনুমতিক্রমে দান সদকা করুন। প্রতিবেশী, অসহায় স্বজন কিংবা দুয়ারে আসা ভিখারী অথবা মুসাফির। দান বা সদকা যে শুধু টাকাই দিতে হবে এমন নয়, হতে পারে পোশাক হতে পারে খাদ্যদ্রব্য কিংবা চিকিৎসার মতো প্রয়োজন। আপনার সামর্থ্য মতো দান সদকা করুন এবং আশেপাশের পরিচিতদের এ ব্যাপারে উৎসাহিত করুন

সেবাদান।

বাসার বয়স্ক রুগ্ন ব্যক্তিদের সেবায় এগিয়ে যান। শ্রদ্ধাবোধ এবং সম্মানের সাথে আল্লাহর খুশির জন্য যত্ন নিন। রোগীর সেবা কিন্তু ইবাদতের মধ্যেই গন্য।

সুতরাং একজন নারী দিনের শুরু হতে রাত পর্যন্ত নিজে নিজে একটা রুটিন তৈরি করুন। যেখানে সংসারের কাজের পাশাপাশি আপনি ইবাদতের জন্য নির্দিষ্ট সময় রাখতে পারবেন।

রমজান পবিত্রতম মাস। নিজের নফসকে পবিত্র রাখুন। নিজেকে সংযমী করুন | রমজান পেয়েও যদি আমরা আমাদের পাপসমূহ ক্ষমা না করাতে পারি, যদি নিজের জীবনকে এর শিক্ষার আওতায় না নিয়ে আসতে পারি, তাহলে তা বড়ই দুঃখজনক।

তাই ইবাদতের আলোকে মহিমান্বিত করি রমজানের দিনগুলি। পবিত্র হোক জীবনযাপন পদ্ধতি।

ভর্তি বিজ্ঞপ্তিঃ ভর্তি চলছে ভর্তি চলছে ভর্তি চলছে –
“কাদলা সোলায়মানীয়া দ্বীনিয়া মাদ্রাসা’’
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম
আল্লাহু আকবার আল্লাহু আকবার নারে রিসালাত ইয়া মোহাম্মাদুর রাসুল (সাঃ)
প্রিয় সুধী,
আসসালামুআলাইকুম, বাংলাদেশে সর্বপ্রথম নায়েবে নবী তৈরির মারকাজ-ছাত্রদের আমল আখলাকে, আকিদায় শিক্ষা দীক্ষায় আরও বিজ্ঞ আরও আল্লাহওয়ালা হিসেবে গড়ে তুলতে একটি উন্নত জাতী ও সমাজ গঠনে দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে ১৯৮৫ সালে ছারছীনায় প্রথম দ্বীনিয়া মাদ্রাসা চালু হয়। দ্বীনিয়া মাদ্রাসার লক্ষ ও উদ্দেশ্য হলো আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের মতাদর্শে উজ্জীবিত সুন্নতে নববীর মোজাচ্ছাম নমুনায় পার্থিব স্বার্থ বিমুখ একদল হক্কানি আলেম তথা নায়েবে নবী তৈরি করা, যারা হবেন লাদিনিয়াত, বেদয়াত, কুসংস্কার, বদ-আকীদা মোকাবিলায় আপোষহীন।
বাংলাদেশ এবং উপমহাদেশের প্রখ্যাত আল্লামা হযরত মাওলানা শাহ্ ছুফী নেছারুদ্দীন আহমদ (রহঃ) ছারছীনা দরবারের শরীফের একজন একনিষ্ঠ ভক্ত ও মুরীদানের উদ্যোগেই চাঁদপুর জেলা কচুয়া উপজেলার ঐতিহ্যবাহী কাদলা গ্রামে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বহু প্রতীক্ষিত ‘’কাদলা সোলায়মানীয়া দ্বীনিয়া মাদ্রাসা’’
ভর্তি বিজ্ঞপ্তিঃ পহেলা রমজান থেকে উক্ত মাদ্রাসায় ভর্তি চলছে
দ্বীনি শিক্ষা বিভাগঃ নূরানী নাজেরা , হেফজ ও আধুনিক প্রযুক্তি সম্বলিত কারিগরি বিভাগ (আসন সংখ্যা সীমিত)
ভর্তির নিয়মাবলীঃ অভিভাবক ও ভর্তি ইচ্ছুকদের ২ কপি ছবি, জন্ম-সনদসহ মাদ্রাসা অফিস থেকে নির্ধারিত ফিস দিয়ে ফরম সংগ্রহ ও জমা দিতে হবে।
বৈশিষ্ট সমুহঃ
স্বল্প সময়ে অক্ষরজ্ঞান থেকে শুরু করে সম্পূর্ণ আল-কোরআন বিশুদ্ধভাবে শিক্ষাদান।
দক্ষ ও অভিজ্ঞতা সম্পন্ন শিক্ষক মন্ডলী দ্বারা পাঠদান।
বিশেষ ও অমনোজোগী শিক্ষার্থীদের আলাদাভাবে পাঠদান।
দ্বীনিয়া ও মাদ্রাসার নিজস্ব মানসম্মত সিলেবাসের মাধ্যমে পাঠদান।
আরবী বাংলা ও ইংরেজির উপর দক্ষতা অর্জন।
বিজ্ঞ আলেম ও মুফতীগনের পরামর্শে পরিচালিত।
আধুনিক কম্পিউটার ও কারীগরী শিক্ষার উপর গুরুত্ব আরোপ।
আদর্শ জীবন গঠনে ইস্লামিক মোটিভেশনাল প্রোগ্রাম।
সার্বক্ষণিক বিদুৎ ব্যবস্থা।
মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম।
সি সি ক্যামরা ধারা সার্বক্ষনিক ক্লাস মনিটরিং এর ব্যাবস্থা।
ইয়াতিম ও গরীব ছাত্রদের পড়া, থাকা ও খাওয়ার খরচ সম্পূর্ণ ফ্রি!
বার্ষিক মাহফিল ও পুরস্কার বিতরণীর ব্যাবস্থা করা।
ভর্তির প্রয়োজনেঃ WhatsApp IMO ০১৯৬৯৪০৩০০৮, ০১৮৮৭৪৫৮০৭০, ০০৪৪০৭৯৩২৮৪৪৯২৯
ই-মেইলঃ kadladeniamadrasha@gmail.com
মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠালগ্নে কর্জে হাসানা পরিশোদ ও মাদ্রাসার দানের জন্য আমাদের বিকাশঃ০১৯৬৯৪০৩০০৮ , ০১৭৮৭৪২২৯৩০
কচুয়া শাখা দি সিটি ব্যাংকঃ একাউন্ট নাম্বার ২১০১১৮৮৪৭৪০০১
ধন্যবাদান্তে
এডভোকেট শাখাওয়াত হোসেন টিটো
প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান
বিঃদ্রঃ বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব গাজী সোলায়মান-নাজমা ফাউন্ডেশান ফাউন্ডেশানের একটি দ্বীনি প্রতিষ্ঠান রেঃজিঃ ০০০৩৪৫