চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচনে এডভোকেট জিল্লুর রহমান জুয়েল হচ্ছে পৌর নির্বাচনী মাঠের মেসি-আহমদ হোসেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক!

এডভোকেট জিল্লুর রহমান জুয়েল হচ্ছে চাঁদপুর পৌর নির্বাচনী মাঠের মেসি : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আমি ওয়াদা করছি, পৌরসভার উন্নয়ন দলমত নির্বিশেষে প্রতিটি নাগরিকের ঘরে পৌঁছে যাবে : মেয়র প্রার্থী অ্যাডঃ জিল্লুর রহমান জুয়েল!

চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী অ্যাডঃ জিল্লুর রহমান জুয়েলের নৌকা প্রতীকের সমর্থনে বিরাট নির্বাচনী পথসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল ৭ অক্টোবর বুধবার বিকেলে চাঁদপুর হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত এ নির্বাচনী পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। বিপুল সংখ্যক মানুষের উপস্থিতিতে পথসভাটি জনসভায় এবং নৌকার বিশাল শো-ডাউনে রূপ নেয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ এবং কেন্দ্রীয় সদস্য গোলাম রহমান চিনু।

আওয়ামী লীগের চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডাঃ জেআর ওয়াদুদ টিপুর সভাপ্রধানে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল। অনুষ্ঠানে জেলা ও পৌর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দসহ অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত আহমদ হোসেন বলেন, চাঁদপুরের মানুষগুলোকে পূর্ণিমার চাঁদের মতো দেখতে। চাঁদপুরে শুধু ইলিশই হয় না, সোনারও মানুষ হয়। সেই সোনার মানুষ ডাঃ দীপু মনি। চাঁদপুরের সোনার মানুষ মেয়র প্রার্থী অ্যাডঃ জিল্লুর রহমান জুয়েল। জুয়েল হচ্ছে চাঁদপুর পৌর নির্বাচনী মাঠের মেসি। আমরা দেখেছি মাঠে মেসি যখন দৌড়ায় তখন তাঁর ধারে-কাছে কেউ নেই। এখন জুয়েল যখন নৌকা নিয়ে যাচ্ছে, তাঁর ধারে-কাছে ধানের শীষ নেই।

তিনি বলেন, ধানের শীষ হচ্ছে হায় হায় পার্টি। ধানের শীষ আগে বলছে ইলেকশান মানে না। পেট্রোল বোমা মারে, রাস্তায় বাড়িতে-গাড়িতে আগুন দেয়। এখন কিন্তু ইলেকশান মানে। কারণ, দুনিয়ার মানুষ জানে বিএনপি হচ্ছে সন্ত্রাসী পার্টি। বদনাম থেকে নিজেদের নাম ভালো করার জন্যে ইলেকশানে আসছে। তারা এও জানে জনগণ তাদের সাথে নেই।

তিনি নৌকার মেয়র প্রার্থী অ্যাডঃ জুয়েলকে জনসম্মুখে হাত উঁচিয়ে দেখিয়ে দিয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তারুণ্যের প্রতীক জুয়েলকে নির্বাচনে নৌকা প্রতীক দিয়েছেন। চাঁদপুরের আওয়ামী লীগ আজ ঐক্যবদ্ধ নৌকার পক্ষে। ১০ তারিখ চারিদিকে নৌকার জোয়ার বইবে।

মেয়র প্রার্থী অ্যাডঃ জিল্লুর রহমান জুয়েল তাঁর বক্তব্যে বলেন, পৌরবাসী আপনারা ভোট দেয়ার জন্যে কেন্দ্রে যাবেন। নৌকার পক্ষে অবস্থান নেবেন, নৌকায় ভোট দেবেন। আমি কথা দিচ্ছি, একটি দিনের বিনিময়ে আমি সারাটা জীবন সুখে-দুঃখে আপনাদের পাশে থাকবো।

আল্লাহর উপর ভরসা নৌকার উপর আস্থা রাখার আহ্বান জানিয়ে জুয়েল বলেন, আমি সকল দলমতের মানুষের কাছে দলের মনোনীত একজন প্রার্থী হতে পারি। কিন্তু আমি যে উন্নয়ন করবো সবার জন্যই করবো। জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের সুফল যেমন সারাদেশের মানুষ পাচ্ছে। আমি তাঁর একজন কর্মী হিসেবে আপনাদের সামনে ওয়াদা করছি, আপনারা নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করুন। ইনশাল্লাহ পৌরবাসীর উন্নয়ন দল-মত নির্বিশেষে প্রতিটি নাগরিকের ঘরে পেঁৗছে যাবে।

জনসভা পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন পাটোয়ারী, অ্যাডঃ মজিবুর রহমান ভূঁইয়া ও জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান টুটুল। এদিন নৌকা প্রতীকের পথসভাকে কেন্দ্র করে শহরের চারদিক থেকে একের পর এক মিছিল আসতে থাকে পথসভায়। এক পর্যায়ে জনসভায় রূপ নিয়ে বিশাল নৌকার শোডাউনে পরিণত হয়।