বাংলাদেশের শেকড় থেকে দুর্নীতিবাজদের সমূলে উৎপাটন করতে হবে-আরিফ মাহবুব!

বেশ কিছুদিন যাবৎ প্রায় সমগ্র ইউরোপে সবচাইতে জোরালো সংবাদ হচ্ছে জার্মানসহ ইউরোপের দেশগুলোর কর্তৃপক্ষগুলো সংঘবদ্ধ অপরাধের বিষয়ে কঠোর হচ্ছে। বার্লিনে জার্মানি মাফিয়ার গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে পুলিশের তৎপরতা ইতোমধ্যে সুইডেনও বেশ প্রভাব ফেলেছে। ইউরোপে দুর্নীতিবাজদের হাত সরকারি উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা ও রাজনীতিবিদদের দার গোঁড়া পর্যন্ত পৌঁছে গেছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। সুইডেনের পুলিশ অবশ্য এ ধরনের গ্যাং ক্রিমিনালিটির সাথে এখানে থাকা প্রবাসীদের যোগসাজশ খুঁজে দেখার চেষ্টা করছে। সুইডেনের অভিবাসন মন্ত্রী মরগান জোহানসন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মিকেল ড্যামবার্গ এবং গ্রিন পার্টির সংসদ সদস্য ক্যারোলিনা স্কোগ গণতন্ত্রবিরোধী কার্যকলাপের বিরুদ্ধে ব্যবস্থার জন্য সংসদে ৩৪ দফা কর্মসূচির প্রস্তাব দিয়েছেন। সুইডেনে আপনি যেখানেই থাকুন না কেন, সবারই নিরাপদ থাকার অধিকার আছে।

ক্রমবর্ধমান ইউরোপের সহিংসতার বিরুদ্ধে লড়াই এবং গ্যাং ক্রিমিনালিটি তাদের নেটওয়ার্ক ভেঙে দিয়ে পরিবেশে নতুন নিয়োগ তৈরির তীব্রতা পর্যালোচনা করা হচ্ছে। পুলিশের ধারণা নীতিনির্ধারক পর্যন্ত এই ক্রিমিনালিটির নেটওয়ার্ক ছড়িয়ে পড়তে পারে। আর ঠিক তাই সরকার এবার বেশ নড়েচড়ে বসেছে। কারণ ছোট ছোট সাহেদ, সম্রাট ও পাপিয়াদের ধরতে গিয়ে এদেশের পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থাগুলো উচ্চ পর্যায়ের ব্যক্তি বর্গদেরও আইনের আওতায় নিয়ে আসতে পারে। একটি দেশের দুর্নীতির ব্যাপকতাকে রোধ করতে এর শেকড় থেকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ শুরু না করলে, কোনোভাবেই দুর্নীতিবাজদের সমূলে উৎপাটন করা সম্ভব নয়। আমাদের বাংলাদেশে সাহেদ, সম্রাট পাপিয়াদের উত্থান এমনি এমনি সম্ভব হতো না। যদি না এদের নেটওয়ার্ক নীতিনির্ধারক পর্যন্ত বিস্তৃতি না থাকতো। কিন্তু কী এক অদ্ভুত কারণে মাছের মাথায় যে পচন ধরে গেছে। সেটা দেখার মতো কেউই থাকে না। এর অবশ্য একটি কারণ খুবই সহজ ভাষায় বলা যায় যে, রক্ষক যখন নিজেই ভক্ষক তখন এইসব রাঘব বোয়ালরা সর্বদাই ধরা ছোঁয়ার বাইরে থাকে, কেউ তো আর যাদু করে হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট, লক্ষ কোটি বিদেশে পাচার করেনি। যদি না এর পেছনে প্রভাবশালীদের হাত বা যোগসাজশ না থাকে। ধরা পরার পর দুর্নীতিবাজরা প্রথমে সব রাঘব বোয়ালদের নাম বলে দেবে, হুমকি দিলেও রিমান্ডে গিয়ে সব ঘুলিয়ে ফেলে, কাজেই রাঘব বোয়ালদের নাম থেকে যায় পর্দার অন্তরালেই।

ফেসবুক থেকে