ভারতের জি নিউজ ও আনন্দ বাজার পত্রিকায় বাংলাদেশ কে ‘খয়রাতি’ বলে কটাক্ষ করায় তীব্র প্রতিবাদে ‘দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও সংগঠন‌’

বাংলাদেশ কে ‘খয়রাতি’ বলে কটাক্ষ করে বাংলাদেশের পতাকাকে অপমান করেছে ব‌লে মন্তব্য ক‌রে‌ছেন ‘দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও’ আন্দোলনের নেতারা।গতকাল মঙ্গলবার (২৩ জুন) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধ‌নে সংগঠন‌টির নেতারা এ মন্তব্য করেন।

বক্তারা ব‌লেন, বাংলাদেশ একটি স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্র। পৃথিবীর যে কোনো দেশের সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক গড়ে তোলার অধিকার বাংলাদেশের রয়েছে। বাংলাদেশের উৎপাদিত পণ্য শুল্কমুক্ত সুবিধায় পৃথিবীর অন্যান্য দেশে রপ্তানি করা বাংলাদেশের একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। অতি সম্প্রতি বাংলাদেশের রপ্তানি পণ্যে চীনের শুল্কমুক্ত সুবিধাকে ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকাসহ বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমে বাংলাদেশকে ‘খয়রাতি’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। আনন্দবাজারের এই প্রতিবেদনে আমরা বিস্মিত। আমরা মনে করি এটা সংবাদ মাধ্যমের নীতি বহির্ভূত।

বাংলাদেশ সরকার এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে কোনো প্রতিবাদ বা প্রতিক্রিয়া জানায়নি উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, করোনা ভাইরাসে বিপর্যস্ত দেশের বিদ্যমান পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের রপ্তানি পণ্য বিদেশে শুল্কমুক্ত সুবিধা আদায় খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এক্ষেত্রে ভারতের গণমাধ্যমে যেভাবে বাংলাদেশকে ‘খয়রাতি’ হিসেবে অভিহিত করা হল, তা জানার পরও বাংলাদেশ সরকারের নীরব থাকা মোটেই কাম্য নয়। বাংলাদেশের জনগণের মর্যাদা ও সম্মানের প্রতি খেয়াল রেখে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে সুস্পষ্ট বক্তব্য দাবি করছি।

মানববন্ধ‌নে উপস্থিত ছিলেন- মুসলিম লীগের মহাসচিব আবুল খায়ের, দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. জিয়াউল হক আনোয়ার, মো. মাসুদুর রহমান, মো. হালিম, মো: আজাদ যুব, শহীদুল ইসলাম তালুকদার প্রমুখ।