কচুয়া আওয়ামীলীগের সিন্ডিকেটের কবলে মহিউদ্দিন খান আলমগীর মননয়ন হাতছাড়া হতে তৃনমূলে আশঙ্কা

কচুয়ার ডাকঃ বাংলাদেশ রাজনৈতির ইতিহাসে যেমন রয়েছে নেতাকর্মী ত্যাগ তেমনি রয়েছে মীরজাফরি ও বৈইমানীর ইতিহাস,খান সাহেব কে কচুয়ার সর্বসস্তরের জনগন মনে প্রানে ভালোবাসে এটা যেমন সত্য,তার অবদান কচুয়ার সমস্ত উন্নয়ন তাকে জনগনের মনের স্থানে জায়গা করে দিয়েছে|কিন্তুু রাজনৈতিক পরিবেশ ভিন্ন,খমতার পালা বদলে অনেকে গাঢাকা দিয়ে চলে যায় কোটি টাকা কামিয়ে| কিন্তুু তৃনমূল কর্মীরা নির্যাতনের শিকার বেশী হয়,অপ্রিয় সত্য হলো এ যে তৃনমুল কর্মীরা এখনো নির্যাতিত খান সাহেবে নিকটস্ব কিছু নেতাদের নিকট,তারা রাজনৈতির নামে রাজত্ব কায়েমে ব্যস্ত,প্রকৃত জনগন ও সাধারন মানুষ বিরক্ত,অথচ খান সাহেব ১২ইউনিয়ন আ”লীগ এর সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক এখনো চিনতে পারে না|কিছু আমলা,ও ব্যাবসায়িক দিয়ে রাজনৈতির খেলা শেষ করে ফেলেছে,শেখ হাসিনার জনসভায় তা কিছুটা প্রমানীত করেছে|বিশেষ ব্যক্তি দিয়ে কখনো রাজনৈতি চলতে পারে না,বিশেষ ব্যক্তিগুলো দিনে বনানীতে এবং রাতে এনবিআর কারন ব্যবসায়িক লাইসেন্স ঠিক রাখতে হবে,নিজের লোকদের করনে যেমনি ব্যাংক গেছে অবশেষে এমপি পদ ও হাতছাড়া হওয়ার ব্যবস্থা নিকটস্ব লোকেরাই করছে|

রাসেল মাহমুদ অনিক,সাংগঠনিক সম্পাদক,১নং সাচার ইউনিয়ন যুবলীগ, তৃনমুল কর্মী|

1,005 total views, 1 views today

মন্তব্য করুন।

Please enter your comment!
Please enter your name here