কচুয়ায় ডাক্তারের অবেহেলায় প্রসূতি মা ও সন্তানের মৃত্যু, থানায় মামলা

কচুয়ার ডাক: কচুয়া উপজেলায় ডাক্তারের অবহেলায় হালিমা বেগম (৩৫) নামের এক প্রসূতির মৃত্যু হয়েছে। সে পাশ্ববর্তী চান্দিনা উপজেলার দেওকান্তা গ্রামের সাব্বির মিয়া ওরফে সিব্বির মিয়ার স্ত্রী। এ ঘটনায় নিহতের বড় ভাই আবুল কালাম রবিবার সন্ধ্যায় বাদী হয়ে কচুয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। থানা পুলিশ তার অভিযোগটি আমলে নিয়ে চিকিৎসাজনিত অবহেলার দায়ের ৩০৪ (ক) ৩৪ ধারায় একটি মামলা রুজু করেন। যার নং ৪। কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আতাউর রহমান ভূইয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, পুলিশ মামলাটি আমলে নিয়ে নিহতের লাশ পোস্ট মডেমের জন্য চাঁদপুরের মর্গে প্রেরণ করেছে। এছাড়া তদন্ত সাপেক্ষ দোষী ব্যক্তিদের গ্রেফতারে জোর তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।
থানায় অভিযোগ সূত্রে জানা,গত ৭ আগস্ট হালিমা বেগমের (৩৫) প্রসব ব্যথা দেখা দিলে ফয়েজুন্নেছা হাসপাতালে ভর্তি করলে দায়িত্বরত চিকিৎসক সিজারের মাধ্যমে তার প্রসব ঘটায়। ওই প্রসূতি মায়ের একটি কন্যা সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর তার শারিরীক অবস্থা অবনতি দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক ওই কন্যা সন্তানটিকে কুমিল্লার একটি প্রাইভেট হাসপাতালে প্রেরণ করে। কন্যা সন্তানটি ওই হাসপাতালে মৃত্যু বরণ করে।
এদিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ প্রসূতি হালিমা বেগমকে ডাক্তারি পরামর্শ মোতাবেক চিকিৎসা দিয়ে তার স্বামীর বাড়িতে প্রেরণ করে। বাড়িতে প্রেরণের পর থেকে হালিমা বেগমের পেটের ব্যথা বাড়তে থাকে। পরে তার স্বজনরা তাকে পুনরায় ওই হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তার পরীক্ষা-নিরিক্ষা শেষে তার জরায়ুতে টিউমার আছে বলে ঔষধ লিখে দেন। ডাক্তারি পরামর্শ মোতাবেক ঔষধ সেবনের পরেও হালিমা বেগমের পেটের ব্যথা ভালো না হওয়ায় তার স্বামী সাব্বির মিয়া গত ২৯ আগস্ট কুমিল্লা শহরস্থ মনোহরপুর আদর্শ হাসপাতালে ভর্তি করায়। এসময় কর্তব্যরত ডাক্তার পরীক্ষা-নিরিক্ষা শেষে রোগীর অভিভাবকে জানান- তার পেটের ভিতরে একটি কাপড়ের গজ (সার্জিক্যল মব) রয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে তার অপারেশন করা প্রয়োজন। নিহতের স্বজনরা ডাক্তারের পরামর্শমতে আবারো অপারেশনের অনুমতি দিলে দ্বিতীয় বারের মতো তার অপারেশন করা হয়। পরবর্তীতে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১ সেপ্টেম্বর রাতে সে মারা যায়। নিহত হালিমা বেগমের তিন পুত্র সন্তান রয়েছে।

2,199 total views, 1 views today

মন্তব্য করুন।

Please enter your comment!
Please enter your name here