কচুয়া সাম্প্রতিক ঘটনায় ফয়জুননেছা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিবৃতি ও প্রতিবাদ

কচুয়ারডাক: হালিমা খাতুনের মৃত্যূকে কেন্দ্র করে ফয়জুন্নেছা হাসপাতালের বিরুদ্ধে অনভিপ্রেত বিভ্রান্তি ছড়ানোর অপচেষ্টা বিষয়ে হাসপাতাল কতৃপক্ষের বিবৃতি ও প্রতিবাদ।
প্রিয় কচুয়াবাসী বিগত ২৫.৭.২০১৮ তারিখ রাত ৯:২৮ মিনিটে হালিমা খাতুন নামে এক প্রসূতি বয়স : ৩৫ বছর, স্বামী: শিবির, গ্রাম: দেওকামতা, পো: জোয়াগ,থানা: চান্দিনা,জেলা: কুমিল্লা প্রসব ব্যাথা উঠার পর বাড়ীতে স্থানীয় ধাত্রী দিয়ে ৮-৯ ঘন্টা চেষ্টা করার পর আশন্কাজনক অবস্থায় ফয়জুন্নেছা হাসপাতালে ভর্তি হয়।কর্তব্যরত ডাক্তার রোগীনির অবস্থা সংকটাপন্ন দেখতে পেয়ে রোগীর অভিভাবকদের অবহিত করেন এবং দ্রুত অপারেশনের পরামর্শ দেন এবং ঝুঁকি সম্পর্কেও জানান। সম্মতি সাপেক্ষে ১০:১৫ সিজার করা হয়।১০:৩০ মি:ভূমিষ্ঠ নবজাতকের আনুমানিক ৩০ মি: পর শ্বাসকষ্ট শুরু হলে হাসপাতালের নিজস্ব এম্ব্যুলেন্স যোগে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করি।পরদিন বিকেল ৫টায় বাচ্চাটির মৃত্যূ সংবাদ জানা
যায়।অপরদিকে বাচ্চাটির প্রসূতি হালিমা হালিমা খাতুন ২৯:০৭.২০২৮ দুপুর বারোটায় ফয়জুন্নেছা থেকে প্রাথমিক রিলিজ নিয়ে চলে যান এবং০৫.০৮.২০১৮ পুনরায় এসে সিজারের সেলাই কেটে রিলিজ নিয়ে চলে যান। তারপর থেকে ০১.০৯.২০১৮ তাং কুমিল্লার একটি বেসরকারি হাসপাতালে হালিমার অকাল মূত্যূর সংবাদ প্রাপ্তি পর্যন্ত ফয়জুন্নেছা হাসপাতাল তার স্বাস্থগত উন্নতি অবনতি সম্পর্কে অবহিত নয়। আমরা স্পস্ট ভাষায় বলছি রোগীনি অত্র হাসপাতালে রুটিন প্যসেন্ট ছিলেন না, তিনি আমাদের হাসপাতালে মৃত্যূ বরন করেন নি,মৃতের সংশ্লিষ্ট অভিভাবক হাসপাতালকে দায়ও দিচ্ছেন না। তথাপিও দূর্ভাগ্যজনকভাবে হালিমা চান্দিনা থানাধীন হওয়া সত্বেও গত ০২.০৯.২০১৮ রাত আনুমানিক রাত ৯টায় নিহতের এক ভাইকে দিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে কচুয়া থানায় হালিমার অকাল মৃত্যূর ব্যাপারে দু:খজনকভাবে ফয়জুন্নেছা হাসপাতালকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করে। অবস্থা যাই হোক ফয়জুন্নেছা হাসপাতাল গরীব মানুষদের দাতব্য প্রতিষ্ঠান।আমরা নিজেদের নির্দোষ দাবী করছি এবং হালিমা খাতুনের বেদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি,তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করছি।
বিনীত
ব্যবস্থাপক
ফয়জুন্নেছা দাতব্য চিকিৎসা কেন্দ্র ও হাসপাতাল.কচুয়া – চাঁদপুর শ্রী সুজন দাস মোবা: ০১৮৮২০৯৪৩২২

474 total views, 1 views today

মন্তব্য করুন।

Please enter your comment!
Please enter your name here