কচুয়া প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে চেয়ারম্যান প্রার্থী স্বপন শিল্প কারখানা গড়ে তুলে বেকারত্ব দূর করার পাশপাশি কচুয়াকে একটি মডেল উপজেলায় রূপান্তর করবো

কচুয়ার ডাক ॥ আসন্ন ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠিতব্য কচুয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামীলীগ নেতা আলহাজ্ব ফয়েজ আহমেদ স্বপন (আনারস) মার্কা কচুয়া প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেছেন। শনিবার দুপুরে কচুয়া রেদোয়ান চাইনিজ রেস্টুরেন্ট এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।
কচুয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি রাকিবুল হাসানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জিসান আহমেদ নান্নু’র পরচিালনায় মতবিনিময় সভায় আসন্ন নির্বাচনে অবাধ সুষ্ঠ্য ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণের লক্ষে প্রশাসন, মিডিয়া কর্মী ও সর্বস্তরের কচুয়াবাসীর সহযোগীতা কামনা করে বক্তব্য রাখেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আলহাজ্ব ফয়েজ আহমেদ স্বপন। তিনি বলেন- আমি নির্বাচিত হলে কচুয়া উপজেলাকে সন্ত্রাস, জাঙ্গিবাদ, বাল্যবিবাহ ও মাদক মুক্ত উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলবো। তিনি আরো বলেন, শিল্প কারখানা গড়ে তুলে বেকারত্ব দূর করার পাশপাশি বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকা- পরিচালনা করে কচুয়াকে একটি মডেল উপজেলায় রূপান্তর করবো।
মতবিনিময় সভায় দলীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. আইয়ুব আলী পাটওয়ারী. সাধারণ সম্পাদক মো. সোহরাব হোসেন চৌধুরী সোহাগ, প্যানেল চেয়ারম্যান ও চাঁদপুর জেলা যুবলীগের সদস্য এডভোকেট হেলাল উদ্দীন, যুবলীগ নেতা ডা. মাসুদ। উক্ত বক্তারা তাদের বক্তব্যে- নৌকার প্রার্থীর পরিবর্তে আওয়ামীলীগ নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী ফয়েজ আহমেদ স্বপনকে সমর্থন জানানোর কারন ব্যাখ্যা করেন। তারা বলেন, নৌকার প্রার্থী শাহজাহান শিশির উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন। নানা অনিয়মের প্রশ্রয় নিয়েছেন। বিভিন্ন সরকারি বরাদ্ধ পেয়ে দলীয় নেতৃবৃন্দকে না জানিয়ে খেয়াল খুশিমত কাজ করেন। তাঁর দ্বারা দলের কোন উন্নতি হয়নি। উন্নতি হয়েছে তাঁর তল্পিবাহক গুটি কতেক লোকের। তার দ্বারা আওয়ামীলীগের অনেক নেতাকর্মী হেনস্থা হয়েছে, নেতাকর্মীদের বিরুদ্বে মিথ্যাচার ও অশোভনীয় কথা বলেছেন। টিআর কাবিটা প্রকল্পে পার্সেন্টেজ হাতিয়ে নিয়েছেন।
তিনি চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালনকালীন উপজেলা পরিষদের প্রায় ২০ কোটি টাকা লুটপাট হয়েছে। সরকারি বাসভবনকে নির্বাাচনী অফিস হিসেবে ব্যবহার করছেন। তিনি গত শুক্রবার উপজেলার ৫নং ইউনিয়নে পথ সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে এই বলে হুমকি প্রদান করেন যে, ২৪ মার্চ নির্বাচনের পর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. হেলাল উদ্দীন ও চাঁদপুর জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য শহীদ উল্যাহকে দেখে নিয়ে ছাড়বে। এছাড়া দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার পূর্বেই সাচারের একটি পথ সভায় তিনি বলেন, ‘নৌকা’ টাকার কাছে বিক্রি হয়ে গেছে, আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ‘করলা’ মার্কা নিয়ে হলেও নির্বাচনী লড়াই চালিয়ে যাবো।
বক্তাদের বক্তব্যে আরো বলেন, কচুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগকে সাংগঠনিকভাবে দৃঢ়ভিত্তির উপর প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে দলের জন্য নিবেদিত প্রাণের অধিকারী, কুলুষমুক্ত, স্বচ্ছ ও উদারমনা ব্যক্তি ফয়েজ আহমেদ স্বপনকে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করার জন্য কচুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের মূলবডি নির্বাচনী মাঠে কাজ করছে।
সাংবাদিকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- কচুয়া প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আবুল হোসেন, সহসভাপতি মানিক ভৌমিক, সদস্য সনতোষ চন্দ্র সেন, কাউছার আহমেদ প্রমুখ। এসময় কচুয়া প্রেসক্লাবের সকল সাংবাদিকসহ আওয়ামীলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ছবি : কচুয়া প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখছেন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ফয়েজ আহমেদ স্বপন।

101 total views, 1 views today