কচুয়া উপজেলাসহ চাঁদপুরে সাতটি উপজেলায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন কচুয়ায় শেষ পর্যন্ত এগিয়ে নৌকা

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত চেয়ারম্যান ৩জন, ভাইস চেয়ারম্যান ১জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ১জন।

আজ ২৪ মার্চ রোববার চাঁদপুর জেলার সাত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এই সাত উপজেলায় মোট ৬শ’ ৪৮টি কেন্দ্রে সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে একটানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলবে। সাত উপজেলায় মোট ভোটার হচ্ছে ১৭ লাখ ২৬ হাজার ৩শ’ ৩৪ জন। আর সর্বমোট প্রার্থী হচ্ছে ৬২ জন। তবে তিন উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ভোট হচ্ছে না। কারণ, এ তিন উপজেলায় একজন করে চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ায় তাঁরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে গেছেন। এ তিন উপজেলা হচ্ছে-মতলব উত্তর, মতলব দক্ষিণ ও হাজীগঞ্জ। এরা তিনজনই আওয়ামী লীগ মনোনীত। আর ভাইস চেয়ারম্যান পদে হাজীগঞ্জ উপজেলায় এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মতলব দক্ষিণ উপজেলায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় দু’জন নির্বাচিত হয়ে গেছেন। তাই এ দু’ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোট হবে না।
এ নির্বাচনকে সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও অর্থবহ করতে প্রশাসন এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সর্বোচ্চ প্রস্তুতি রয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র থেকে জানা গেছে। কোনো মহল থেকে যাতে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে নির্বাচনকে বানচাল করতে না পারে সেজন্যে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পর্যাপ্ত সংখ্যক সদস্য মাঠে এবং প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে থাকবে। পুলিশ, বিজিবি ও র‌্যাবের স্পেশাল টিম নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে থাকবে সক্রিয়ভাবে।
দেশে ৫ম বারের মতো অনুষ্ঠিত এ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে আজ ২৪ মার্চ অনুষ্ঠিত হচ্ছে দেশের চার শতাধিক উপজেলার সাথে চাঁদপুর জেলার সাত উপজেলার নির্বাচন। এ ধাপে শুধু হাইমচর উপজেলার নির্বাচন হচ্ছে না। নির্বাচন হচ্ছে চাঁদপুর সদর, ফরিদগঞ্জ, হাজীগঞ্জ, শাহরাস্তি, কচুয়া, মতলব উত্তর ও মতলব দক্ষিণ উপজেলার। এই সাত উপজেলায় মোট প্রার্থী হচ্ছে ৬২ জন। তবে চেয়ারম্যান পদে ভোট হবে চার উপজেলায়। আর অন্য তিন উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীই একমাত্র প্রার্থী হওয়ায় তাঁরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে গেছেন। উপজেলা তিনটি হচ্ছে মতলব উত্তর, মতলব দক্ষিণ ও হাজীগঞ্জ। এই তিনটি ছাড়া অন্য চার উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে একাধিক প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী রয়েছেন। এ নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নেয়ায় প্রতিটি উপজেলায় মূল প্রতিদ্বন্দ্বী হচ্ছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী। সাথে রয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী এবং দুইটিতে জাতীয় পার্টি ও এনপিপির প্রার্থী রয়েছেন প্রতিদ্বন্দ্বিতায়।
উপজেলাভিত্তিক প্রার্থী সংখ্যা হচ্ছে-চাঁদপুর সদরে চেয়ারম্যান পদে ৩, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন। ফরিদগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে ৩, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৭ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ জন। হাজীগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে গাজী মাইনুদ্দিন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে গেছেন। এ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদেও গোলাম ফারুক মুরাদ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে আছেন। তাই এ উপজেলায় শুধু মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোট হবে। এ পদে প্রার্থী হচ্ছে ৫ জন। শাহরাস্তি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৩, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ৪ জন। কচুয়ায় চেয়ারম্যান পদে ৪, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন। মতলব উত্তরে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এমএ কুদ্দুস বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে গেছেন। এ উপজেলায় এখন প্রার্থী রয়েছে ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন। মতলব দক্ষিণ উপজেলায়ও চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এইচএম গিয়াস উদ্দিন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে গেছেন। এছাড়া মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদেও ফেরদৌসী বেগম বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে গেছেন। তাই এ উপজেলায় শুধু পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোট হবে। আর এ পদে প্রার্থী হচ্ছে ৪ জন।

উল্লেখ্য এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ডঃ মহীউদ্দিন খান আলমগীর এমপির আশীর্বাদপুষ্ট কচুয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটের মাঠে জনপ্রিয়তা ও জয়ী হওয়ার শীর্ষে এগিয়ে রয়েছেন বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী নৌকা প্রতীক নিয়ে শাহজাহান শিশির,ভাইস-চেয়ারম্যান পদে এগিয়ে মাহবুবুল আলম ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে এগিয়ে সুলতানা খানম।
কচুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউর রহমান হাতেম নৌকা মার্কার প্রার্থী শাহজাহান শিশিরকে সমর্থন দিয়েছেন মর্মে শাহজাহান শিশির তার নিজ ফেসবুক পেইজে স্টাটাস প্রদান করেন। কচুয়ায় বিভিন্ন সোসাল মিডিয়া বিশেষ করে ফেসবুকে ভাইরাল হতে থাকলে নৌকা মার্কার সমর্থকদের মাঝে নৌকা বিজয়ে শতভাগ নিশ্চিত আশার আলো জেগে ওঠে। সে ক্ষেত্রে নৌকা বিজয়ে আর কোন বাঁধা রইলো না বলেও তাঁর কর্মী সমর্থকরা জানান।কচুয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ইতিপূর্বে কচুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের আরেক সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ আবদুল জব্বার বাহার নৌকা মার্কায় সমর্থন প্রদান করলেও নৌকার ভোট বেড়ে গিয়ে তিন গুন হয়ে বিজয়ের অপার সম্ভাবনা দেখা দেয়। আজ বিকাল ৪টা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে শেষ হাসি আজ কারা কচুয়া ও চাঁদপুরে হাসেন।

বিশেষ প্রতিবেদন কচুয়ারডাক নিউজ ডেস্ক।

222 total views, 2 views today