আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মালেক মাষ্টারের জীবনাবসান

ছবিঃ কচুয়া পৌর আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মালেক মাষ্টারের জানাযায় হাজারো মানুষের ঢল।

কচুয়ার ডাকঃ
কচুয়া পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও কোয়া কোর্ট মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন সিনিয়র শিক্ষক আব্দুল মালেক মাষ্টারের জীবনাবসান হয়েছে (ইন্না নিল্লাহি ওয়া ইন্নাইলাহি রাজিউন)। তিনি রবিবার দুপুর ১২টার দিকে হৃদক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর। তিনি স্ত্রী, ৩ ছেলে, ২ মেয়েসহ বহুগুনগাহী রেখে গেছেন। মরহুমের প্রথম জানাযা রবিবার বাদ মাগরিব কচুয়া ঈদগাহ জামে মসজিদ অনুষ্ঠিত হয়। দ্বিতীয় জানাযা কড়ইয়া পশ্চিম পাড়া বায়তুল আমান জামে মসজিদ বাদ এশা অনুষ্ঠিত হয়। পরে গাজী বাড়ী পারিবারিক কবরস্থানে মরহুমের লাশ দাফন করা হয়। মরহুম আব্দুল মালেক মাষ্টার কচুয়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক ও ধামালুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: কামাল হোসেনের বাবা। এদিকে কচুয়া পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল মালেক মাষ্টারের মৃত্যুতে মরহুমের পরিবারের প্রতি সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশির, ভাইস চেয়ারম্যান সুলতানা খানম, মাহবুব আলম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি- আইয়ুব আলী পাটোওয়ারী, সাধারন সম্পাদক- সোহরাব হোসেন সোহাগ, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা ইমাম হোসেন মেহেদী, পৌর মেয়র- নাজমুল আলম স্বপন, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি- আকতার হোসেন সোহেল ভূঁইয়া, সাধারন সম্পাদক- ইকবাল আজিজ শাহীন, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক- মাসুদ মিয়াজী, কচুয়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো: তাজুল ইসলাম গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন।
ত্যাগী ও নিলোর্ভ রাজনীতিক হিসেবে পরিচিত মালেক মাষ্টারের মৃত্যুর খবর শুনে দলীয় নেতা কর্মীরা তাঁর বাড়িতে ভিড় জমাতে শুরু করে। ব্যক্তিজীবনে তিনি একজন সৎ, ন্যায়পরায়ণ ব্যক্তি হিসেবে এলাকাবাসীর কাছে পরিচিত ছিলেন।

137 total views, 4 views today