কচুয়া উপজেলায় সেচ্ছাসেবকগন ভীত সভ্রস্ত ও নিরাপত্তা হীনতায় মানবিক কাজকে জাতীয়ভাবে প্রশ্নবিদ্ধ করতে অপপ্রচারে লিপ্ত রাজাকার পুত্র সেলিম@পাপুল ও তার পালিত সন্ত্রাসী বাহীনী-বিভিন্ন মহলের নিন্দা ও প্রতিবাদ!

কচুয়া উপজেলায় সেচ্ছাসেবকগন ভীত সভ্রস্ত ও নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছেন পাঠকফোরামের মানবিক কাজকে জাতীয়ভাবে প্রশ্নবিদ্ধ করতে বিভিন্নভাবে অপপ্রচারে লিপ্ত রাজাকার পুত্র সেলিম@পাপুল ও তার পালিত সন্ত্রাসী বাহীনী-বিভিন্ন মহলের নিন্দা ও প্রতিবাদ!

আসসালামুয়ালাইকুম ! মাহে রমজানুল মোবারক, প্রিয় পাঠক দেশ-বিদেশের শুভাকাঙ্ক্ষীগন গত বেশ কিছুদিন যাবত উপজেলার একটি বিশেষ বিপথগামী মহল কচুয়ারডাক সম্পাদকের কোন অনুমতি না নিয়ে কিংবা প্রকাশিত সংবাদের কোন বিক্ষুব্ধ প্রতিবাদ না জানিয়ে কচুয়ারডাক অনলাইন এবং উপজেলায় মানবিক কাজ কে প্রশ্নবিদ্ধ করার হীন প্রচেষ্টায় লিপ্ত থেকে স্থানীয় এবং জাতীয়ভাবে ঘৃণা ও হিংসা বিদ্মেশ ছড়াচ্ছে যা মানবিক কাজকে বাধাগ্রস্থ করছে, যা অত্যান্ত দুঃখজনক।
এ ধরনের অপ প্রচার করে কচুয়ারডাক পাঠক ফোরামের মানবিক কাজকে যারা প্রশ্নবিদ্ধ করে তুলেছেন সে সকল ব্যাক্তি ও ঘোস্টীর বিরুদ্ধে দেশের প্রচলিত আইন ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ব্যাবস্থা গ্রহণে কচুয়ারডাক সম্পাদকীয় পরিষদ বদ্ধপরিকর। কচুয়ার প্রায় ৫লক্ষ জনগন কে সাথে নিয়েই আইনি প্রতিকার পেতে চায় কচুয়ারডাক পাঠক ফোরাম, ইতিমধ্যেই সম্পাদকের অনুমতি ছাড়া যে বা যাহারা প্রিন্ট ডাউনলোড করে সামাজিক মাধ্যম ও দেশের জাতীয় সংবাদ মাধ্যমে অপপ্রচার চালাচ্ছেন আমাদের সেচ্ছাসেবকগন তা নিয়ে উদ্ভেগ প্রকাশ করলে, তাদের কে এই মুহূর্তে আইনের আওতায় আনা উচিৎ নয় কি? বিভিন্ন মহলের নিন্দা ও প্রতিবাদ, এখনি রুখে দাঁড়াতে হবে এসব মানবিক কাজে বাঁধা প্রদানকারীদের বিরুদ্ধে। কচুয়ারডাক সত্য প্রকাশে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। মতামত
ছবিঃ উপজেলায় একজন অসহায়কে নগদ অর্থ বিতরণ ১ং সাচার ইউপি, সম্পাদক ও সেচ্ছাসেবকের অনুমতি ব্যাতিত কচুয়ারডাক ওয়েব সাইট ও ফেসবুক ফেইজে ডুকে উক্ত ছবি সেলিম@পাপুল তার ফেসবুকে সামাজিক কাজকে জাতিয়ভাবে উদ্দেশ্য প্রনোদিতভাবে সম্প্রতি প্রচার করে, যা উপজেলায় ত্রান বিতরণ ও মানবিক কাজে কচুয়ারডাক পাঠকফোরামের অপুরনীয় ক্ষতি সাধিত হয়।